জন্মান্তর

যদি জন্মান্তর হয় কখনো

ছোট্ট একটা ধূসর চড়ুইপাখি হয়ে উড়তে চাই,
বেহিসাবি আকাশ জুড়ে ডানা মেলতে চাই,
অনির্বাণ! অনন্ত সময় কাল!
হোকনা আকাশ তখন রোদজ্বলা কিংবা মেঘে মেঘে টান টান,
আমি ডানা মেলবো, আকাশের পরে আকাশ ছুঁয়ে
ক্লান্তিহীন অদম্য ভালোলাগায়…
বহুকাল জানালা গলিয়ে ফ্রেমে বাঁধা আকাশটা দেখতে দেখতে ক্লান্ত আমি!
প্রতিমুহূর্তে পাখী হয়ে উড়বার সাধ ছিলো যে নিভৃতে, মননে! সময় এসেছে আজ।
মানুষ নয়,স্বাধীনতার সুখ নিয়ে এ জন্মে
ছোট্ট একটা পাখী হতে চাই।

যদি জন্মান্তরে আবারও ফিরে আসি
পৃথিবীর আলোছায়ায় …
শিশিরভেজা ঘাসফুল হয়ে ফুটতে চাই,সেই মেঠো পথটার পাশে …
সুগন্ধ নাইবা ছড়ালাম,তোমাদের সাজানো সভ্যতার
ভাঁজে ভাঁজে,কিংবা গোপন আঁধারের মাঝে ..
বুনোফুলের সৌন্দর্য্যে বিমূর্ত হয়ে রবে কেবল ভোরের পাখ-পাখালি!
অবারিত নিকুঞ্জবনে সুবাস ছড়ায়ে মুগ্ধতায় ভরাবো আমি, অরন্যের দিনরাত্রি।

যদি জন্মান্তর হয় শ্রাবণের কোনো এক ঘনঘোর বরিষণে …
টিনের চালে রিমঝিম সংগীতের তালে তালে,
ভেজা মাটির সোঁদা গন্ধে
ফিরে আসি যেনো সে মায়েরই কোলে…
মমতায় জড়িয়ে আছে যে আমার সমস্ত জীবন
নির্ভরতার পরম আশ্বাসে।।

-হাছিনা মমতাজ ডলি