দেখবি যদি আয়

দেখবি যদি আয়

বেঁচে আছি জলের’পরে পানির পিপাসায়
শুনবি যদি আয়
বন্দি আছি ফন্দি জেলে হাসাবো কান্নায়
জানবি যদি আয়
রক্তকণা কেমন করে পানি হয়ে যায়।

দেখবি যদি আয়
কেমন করে পাচাটারা প্রভুরে ঘুরায়
খাবি যদি আয়
হায়েনা হয়ে কামড় দিবি আমার কলিজায়
ধরবি যদি আয়
ফোঁস মন্তর ছেড়ে দিলে আমায় ধরা যায়।

দেখবি যদি আয়
কলম দিয়ে মুণ্ডু কাটার সহজাত উপায়
ভক্তি নিলে আয়
নরম জিহ্বায় লেহন দিয়ে ভক্তি দেবো পায়
কামের জন্য আয়
আগলা আছি নাচমহলে মন যদি না চায়।

দেখবি যদি আয়
কেমন করে ঘুরছি পাকে নাকাল পড়ে গায়
শ্বাস লাগলে আয়
এক ধমকে শ্বাস পাবি তুই আমার মহল্লায়,
শাসন করবি আয়
চোখের গরম দিলে পরে শাসন করা যায়।

দেখবি যদি আয়
হৃদয়খানা কত ক্ষত অত্যাচারের ঘায়
মন নিবি কি আয়
মনের সাথে দেহ পাবি ভোগের মোহনায়
করুণা করবি ভাই?
নিজকে ছাড়া ভাবনা-চিন্তা সবি যে মিথ্যায়।

-গুলজার হোসেন গরিব