রক্তজবা

বীথি রহমান

৮ ফাল্গুন
কৃষ্ণচূড়ার রঙে রাঙানো এক রক্তাক্ত সকাল
পলাশের ডালে একমনে গেয়ে যাচ্ছে কিন্নরী কোকিল
বসন্তের উদ্ভ্রান্ত হাওয়ায় সাজ সাজ রব
শহীদ মিনারের সুনিপুণ আলপনা বলে দেয়-
আজ তোমাকে পাবার দিন
বেদিতে শায়িত বায়ান্নর বিষণ্ণ দুপুর
বাতাসে নাম না জানা কিশোরের আর্তনাদ
বেজন্মা কুকুরের গুলির শব্দ ছাপিয়ে রফিক-সালাম-শফিউল চিৎকার করে বলছে-
আমি হাসতে চাই বাঙলায়
আমি কাঁদতে চাই বাঙলায়
আমি মাকে ভালবাসতে চাই বাঙলায়
আমি প্রেমিকার ঠোঁটে চুম্বন এঁকে দিতে চাই
এই মধুময় বাঙলায়

এরপর, আদিগন্ত নিস্তব্ধতা
রক্ত রঞ্জিত রাজপথ ঢেকে যায় পালক-খসা পাখিদের মিছিলে
রাষ্ট্রের চোখ পুড়ে, বুক পুড়ে
আমার মায়ের সুখ পুড়ে তোমাকে পেলাম প্রিয় বাঙলা
তোমার অভিধানে রক্ত খচিত শব্দের তুফান
এই মাটির শস্যদানায়
এই বৃক্ষের পাতায় পাতায়
এই সবুজ ঘাসের ডগায়
এই পদ্মার বাঁকে বাঁকে মিশ্রিত
থোকা থোকা রক্তজবা শব্দ!