সব কিছু যেন নোনা জল

বিবর্ণ বিস্তারে মেঘ গুলো ম্রিয়মান
আকাশের ধূসর বর্ণে ধূলির রেখা
ওরা রঙধনু আঁকে না
আঁকে ক্ষয়ে যাওয়া কোন মানবীর মুখ
বাতাসের সখ্যতায়….
যে ঢেউ আঁছড়ে পড়ে তটে
খামচে ধরে পৃথিবীর আঁচল
দিয়ে যায় ভালবাসায় সাদাটে হাওয়াই মিঠাই ফেনিল জলের মাথায় করে
তার বক্ষও কিন্তু নোনা জলে ভরা!
নোনা জল মানে অশ্রু
শোকের সুখের আনন্দের হারানোর কাব্য কথায়…
মানুষের স্বপ্ন, বিস্তৃত মনের জমিন খুঁড়ে দেখ,
অতল গভীরে পাবে জলের বুঁদ
সেও অশ্রু হলে সাগরের জল হয়!
ধূসর আকাশকে কালো করে আসে জোনাকির রাত,
জোছনা, লক্ষ্মী প্যাঁচার বড় বড় চোখ কাঁটা ঘুড়ির মাঞ্জাসুতোর ফাঁদে ওরা ছটফট করে।
তারও পরে নির্ঘুম মানবিক রাত
কষ্টেরা করজোরে থাকে

সুখের বন্দনায়,
মানবীরমেঘমুখ বৃষ্টি হয়,
চাতালে পায়রারা জবুথবু
কার মুখ দেখে কাঁদে আহত হৃদয়
সবশেষে সব জল বয়ে চলে অতল আহব্বানে!
নোনাই থাক সব
সব কষ্ট মিঠে পানি
সব সুখ ধূলো পড়া মেঘ
আর সবকিছু মিলে নোনাই থাকে
স্মৃতির ধরনীতে!

-পলাশ পুরকায়স্থ